.:সড়ক যোগাযোগ সর্ম্পকিত যে কোন সমস্যার তথ্য প্রদান করুন:.    Back to Home | Search by Id 
Back to Home Page
 


Your IP Address: 18.232.51.247
Your Client IP Address: 18.232.51.247
Your Server IP Address: 18.232.51.247
Your Browser: CCBot/2.0 (https://commoncrawl.org/faq/)

সড়ক যোগাযোগ সর্ম্পকিত যে কোন সমস্যার তথ্য প্রদান করুন
প্রদানকারীর নাম : *

ফোন নম্বর: *


ই-মেইল : *


স্হান, জেলা : *

বর্ণনা : *

সমস্যার/ক্ষতিগ্রস্থ স্থানের ছবি (যদি থাকে):
(Max size : 2MB)

আরো ছবি দিন


কোড নম্বরটি লিখুন



তথ্য প্রদানে কোনো কারিগরী ত্রুটির সম্মুখীন হলে যোগাযোগ করুন - ৯৫৭৫৫২৭ এই নম্বরে, E-mail : programmer1@rthd.gov.bd

 
ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রাপ্ত সড়ক যোগাযোগ সর্ম্পকিত তথ্য
Print  
9653. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Gazipur
তারিখ ও সময় : 21 Nov, 2019 10:28:19
বর্ণনা :

 


Sub : You are requested to ban on 3-wheelers CNG AUTO RICKSHAWS on highway (Gazipur Bipas to Narayangong gawsia)


Dear Sir,


We would like to inform you that regarding 3-wheelers CNG AUTO RICKSHAWS on highway (Gazipur Bipas to Narayangong gawsia). We are all know that the Gazipur Bipas to Narayangong gawsia highway is very busy. always up-down this way big big cover van, truck, bus and others. And this highway is one way.I think this is illegel and unsafe for permit the 3-wheelers CNG AUTO RICKSHAWS on highway.


So you are requested to ban on 3-wheelers CNG AUTO RICKSHAWS on highway (Gazipur Bipas to Narayangong gawsia)


 


Thanks


 


জবাব :

See Reply

আপনার অভিযোগের জন্য ধন্যবাদ।

 

উপর্যুক্ত বিষয় ও সুত্রস্থপত্রের প্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে, জনাব মনির, গাজীপুর(ফোনঃ০১৯৭৬২০৪০১৮,ইমেইল:mmibd09@yahoo.com) কর্তৃক গত ২১-১১-২০১৯খ্রিঃ তারিখে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ বরাবর অনলাইনে গাজীপুর বাইপাস হতে নারায়ণগঞ্জ গাউছিয়া পর্যন্ত মহাসড়কে সিএনজি অটোরিক্সা বন্ধের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থ্বা গ্রহনের অনুরোধ করা হয়েছে(কপি সংযুক্ত)।

উল্লেখ্য, গত ০৯-০৮-২০১৫খ্রিঃ তারিখে সরকারি এক আদেশে দেশের ২২টি জাতীয় মহাসড়কের উপর থ্রি-হুইলার অটোরিক্সা/অটোটেম্পু এবং অযান্ত্রিক যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষনা করা হয়। উক্ত ঘোষণা অনুযায়ী সংযুক্ত অভিযোগে উল্লেখিত সড়কে{এন-১০৫; মদনপুর-ভুলতা-মিরেরবাজার-ভোগড়া-কড্ডা(ঢাকা বাইপাস)} থ্রি-হুইলার অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ করা হয়েছে।

০২। এমতাবস্থায়, উক্ত মহাসড়কে থ্রি-হুইলার অটরিক্সা চলাচল বন্ধ করার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের সহায়তায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার অনুরোধ করা হলো।

 


9652. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : শাহ আমানত সেতু, চট্টগ্রাম
তারিখ ও সময় : 21 Nov, 2019 09:00:15
বর্ণনা :

আগেও ঠিক একই সমস্যা নিয়ে অভিযোগ করেছিলাম। কোনো প্রতিকার  হয়েছে বলে মনে হয় না। কারণ একই সমস্যার সম্মুখীন আজকেও(২১/১১/১৯)  হতে হয়েছে। প্রশ্ন একটাই সমস্যার সমাধান কি হবে নাকি হবে না????   


জবাব :

See Reply

অভিযোগ সুস্পষ্ট না হওয়ায় জবাব প্রদান করা সম্ভব হচ্ছেনা। তিনি কোন বিষয়ে/সমস্যার কথা উল্লেখ করতে চাচ্ছেন তা অভিযোগ পর্য্যালোচনায় বুঝা যাচ্ছে না। পুনরায় সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হ’ল।


9651. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Jhenaidah
তারিখ ও সময় : 21 Nov, 2019 04:55:07
বর্ণনা :

I have collected the ticket of BRTC bus bound for Kishoreganj from Jhenaidah .  The Bust counter manager provided me a set G-4. But the ticket was sold twice. I am travelling  standing. Shameful...! Can these incident be solved.?? 


জবাব :

See Reply

অভিযোগের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার অভিযোগের বিষয়ে জানানো যাচ্ছে যে, খুলনা-কিশোরগঞ্জ রুটের বাসের ঝিনাইদহ কাউন্টার প্রতিনিধির বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনয়ন করা হয়েছে তা তদন্ত করে জানা যায়, যশোর পাল বাড়ীর কাউন্টার মাষ্টার ও ঝিনাইদহ কাউন্টার মাষ্টার কোন প্রকার যোগাযোগ ছাড়া একই সিট বিক্রি করেন। এ ঘটনা তাদের অনাকাংখিত ভুলের জন্য হয়েছে বলে স্বীকার করেন। ভবিষ্যতে যদি এ ধরনের ভুল হয় তাহলে কাউন্টার মাষ্টারদের কাউন্টার প্রতিনিধিত্ব বাতিল করা হবে বলে সতর্ক করে দেওয়া হয়। ভবিষ্যতে এই ধরনের ভুল হবে না বলে কাউন্টার মাস্টাররা অঙ্গিকারও করেন। এছাড়া উক্ত অভিযোগ কারীর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে পদক্ষেপের বিষয়ে অবহিত করা হলে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।


9649. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Rajshahi
তারিখ ও সময় : 18 Nov, 2019 02:55:06
বর্ণনা :

Dear sir,


this is inform that, today Travelling time rajshahi to darsona by ac bus. Mr Nur islam BRTC bus supervisor


he told him it is system. Ac bus without permission Overload,


so sir please solve the problem.


Thank by


shamim 


 


জবাব :

See Reply

বিআরটিসি পাবনা বাস ডিপোতে কন্ডাক্টর (সুপারভাইজার) স্বল্পতার জন্য বর্ণিত বাসে দৈনিক মজুরীভিত্তিক কন্ডাক্টর (সুপারভাইজার) দিয়ে পরিচালনা করা হয়। বর্ণিত বাসে ওভারলোড যাত্রী পরিবহন করায় দৈনিক মজুরীভিত্তিক কন্ডাক্টর (সুপারভাইজার)-কে চাকুরীচ্যুত করা হয়েছে এবং বর্ণিত বাসের চালক ও নতুন সুপারভাইজারকে ভবিষ্যতে এধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে জন্য কঠোর সতর্ক করা হয়েছে। আপনাকে ধন্যবাদ।


9648. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Dhaka
তারিখ ও সময় : 17 Nov, 2019 11:58:55
বর্ণনা :

জনাব ওবায়দুল কাদরে, এমপি
মাননীয় মন্ত্রী
সড়ক পরবিহন ও সতেু মন্ত্রণালয়



বিষয় ঃ জোর পূর্বক অতিরিক্ত চাঁন্দা নিচ্ছে লাব্বাইক ট্রান্সপোর্টের ব্যানার মালিক হাসান সাহেব।


জনাব,
সবিনয় নিবেদন এই যে, আমি লাব্বাইক ট্রান্সপোর্ট এর একজন সাধারণ মালিক। ১লা নভেম্বর থেকে গাড়ির ব্যানার মালিকদের কে যদি ব্যানার এ ৫০ টার উপর গাড়ি থাকে গাড়ির মালিকদের কাছ থেকে ২০০ টাকা জিপি নেওয়ার জন্য নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু লাব্বাইক ব্যানারে ৭০ টার উপর গাড়ি থাকা সত্বেও ওয়েবিলে লিখে জিপি নিচ্ছে। ৪৫০ টাকা করে আবার অয়েবিলে না লিখে আলাদা করে ২৫০ টাকা চাঁন্দা নিচ্ছে। প্রতি বার সিরিয়াল দেওয়ার সময় ৫০ টাকা করে চাঁন্দা নিচ্ছে। চার বার সিরিয়াল দিতে ২০০ টাকা নিচ্ছে। প্রতি ইস্টপিজে অয়েবিল লিখে ১০ টাকা করে চাঁন্দা নিচ্ছে ৬টা ইস্টপিজে ৪ সিঙ্গেলে ২৪০ টাকা চাঁন্দা নিচ্ছে। জিপি চাঁন্দা মিলে সর্বমোট ১১৪০ টাকা নিচ্ছে। যদি কোন মালিক চাঁন্দা দিতে না চায় তার গাড়ির সিরিয়াল দিচ্ছে না। চাঁন্দা না দিলে গাড়ি চালইতে দিচ্ছে না। চাঁন্দা না দেওয়ার কারণে মালিকদের অনেক গাড়ী বন্ধ রাখছে। আমরা সাধারণ মালিকরা অনেক কষ্টে আছি।


অতএব, জনাবের নিকট বিনীত প্রার্থনা এই ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।



নিবেদক



(সাধারণ মালিকরা)
লাব্বাইক ট্রান্সপোর্ট


জবাব :

See Reply

ধন্যবাদ আপনার অভিযোগের জন্য।

আপনার অভিযোগের বিষয়টি বিআরটিএ সংশ্লিষ্ট নয়।


9647. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : kishorgonj,katiadi
তারিখ ও সময় : 15 Nov, 2019 10:19:36
বর্ণনা :

আমাদের বাড়ি কিশোরগঞ্জের জেলার কটিয়াদি থানা মসূয়া গ্রামে।আমাদের এলাকার সরকারী রাস্তা এলাকার কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি দখল করে নিয়েছে।রাস্তার মাঝখানে গাছ লাগিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে।এলাকার মানুষ তাদের ভয়ে থানায় কোন অভিযোগ করে না।আবার অভেযোগ করতে গেলে থানায় তা আমলে নেয় না।রাস্তার সকল রেকর্ড ও কাগজ আছে।উক্ত সমস্যা কর্তৃপক্ষের দৃষ্ট আকর্ষন করছি।


জবাব :

See Reply

সড়কটি সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাভূক্ত না হওয়ায় সওজ কর্তৃক কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাচ্ছে না। 


9645. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : ব্রাক্ষনবাড়িয়া,সদর
তারিখ ও সময় : 13 Nov, 2019 15:36:00
বর্ণনা :

ব্রাক্ষনবাড়িয়াতে অবস্থিত আশুগন্জ উপজেলা হতে আখাউরা উপজেলা স্থলবন্দর সংগায়িত ৪ লেন এর যে প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য সাক্ষরিত হয়,সেই পকল্পের পরিচালনা, এবং কার্যক্রম কবে থেকে শুরু হতে যাচ্ছে,সেটার কোন আপডেট আছে কি.? আর প্রকল্প শুরু করার তারিখ যদি ও অনেকটা পিছিয়ে গেছে,সেটা আরো কত সময় লাগবে,বা কতটা সম্ভাবনাময় সেটা জানাবেন,ধন্যবাদ


জবাব :

See Reply

আপনাকে ধন্যবাদ। আশুগঞ্জ নদীবন্দর-সরাইল-ধরখার-আখাউড়া স্থলবন্দর মহাসড়ককে ৪ লেন জাতীয় মহাসড়ককে উন্নীতকরণ প্রকল্পটির আওতায় বিদ্যমান মহাসড়ককে ৪ লেন জাতীয় মহাসড়ককে উন্নীতকরনের জন্য পূর্তকাজের ক্রয় প্রক্রিয়ার প্রতিবেদন অনুমোদনের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। উল্লেখিত অনুমোদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে পূর্ত কাজটি শুরু করা সম্ভব হবে। এছাড়া প্রকল্পের ভূমি অধিগ্রহণ ও ইঊটিলিটি স্থানান্তর কার্যক্রম চলমান রয়েছে। 

 


9644. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : jugibil, kamalgonj, Moulvibazar
তারিখ ও সময় : 13 Nov, 2019 13:35:53
বর্ণনা :
সড়ক সংস্কারে বালির পরিবর্তে মাটি ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের যোগীবিল গ্রামের সড়ক সংস্কারে বালির পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে কাদামাটি।  ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় সড়কের দুই পাশের মাটি কেটে দেওয়া হচ্ছে সড়কেরই উপর এবং কেউ যাতে বুঝতে না পারে সেক্ষেত্রে কৌশল হিসেবে  উপরে  হালকা বালি এবং কংক্রিট মিশ্রিত স্তর দেওয়া হচ্ছে। সড়কের উপরের স্তর দেখে বোঝার উপায় নেই যে সদ্য নির্মিত সড়কটির বালির পরিবর্তে অধিকাংশই কাদামাটি ও কংক্রিট মিশ্রিত।

 


স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন বালির পরিবর্তে মাটি দিয়ে রাস্তা সংস্কার করা হচ্ছে,বিধায় সামন্য বৃষ্টি পড়লেই বেরিয়ে আসে সড়কের আসল চেহারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক  স্থানীয় আরো এক কলেজ ছাত্র  বলেন সামান্য বৃষ্টি পড়লেই  সমস্ত সড়ক কাদা  হয়ে যায়, যদি বালি মিশ্রিত কংক্রিট থাকত তাহলে ত  কাদা হওয়ার কথা নয়। একটু বৃষ্টি পড়লেই রাস্তায় কাদা হয়ে যায় বালির কোন অস্তিত্ব দেখা যায় না। কাদামাটির কারণে আমরা রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে পারিনা।

 

স্থানীয় কয়েকজন  বলেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান স্থানীয় প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারছেন না। এমনকি ছবি তুলতে চাইলে  রাস্তা সংস্কারে কর্মরত শ্রমিকরা আমাদের(স্থানীয়দের) বাধা দিচ্ছেন।

 

 আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বাবু সুকুমার দেবনাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ,সদ্য নির্মিত সড়কে বালির পরিবর্তে মাটি দেওয়া হচ্ছে দেখে, তিনি প্রতিবাদ করেছেন কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি।

 

এবিষয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম বলেন,  সরকারি নীতিমালায় বলা হয়েছে সদ্য নির্মিত সড়কে বালি ও কংক্রিট মিশ্রিত ৬ ইঞ্চি স্তর দিতে হবে, এর ব্যতিক্রম হলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে

জবাব :

See Reply

উল্লিখিত সড়কটি/কাজটি মৌলভীবাজার সড়ক বিভাগের অন্তর্ভূক্ত নয় বলে নির্বাহী প্রকৌশলী, সওজ, সড়ক বিভাগ, মৌলভীবাজার অবহিত করেছেন। অভিযোগ করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।


9643. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : ফার্মগেট, ঢাকা।
তারিখ ও সময় : 12 Nov, 2019 08:43:07
বর্ণনা :

আমি প্রতি সপ্তাহে বৃহস্পতিবার আমার গ্রামের বাড়ি যাওয়ার পথে ও শনিবার ঢাকায় আসার পথে গুলিস্তান - মাওয়া BRTC এসি বাসে করে যাই যার টিকেট মুল্য ১৩০ টাকা। 


গুলিস্তান থেকে মাওয়া যাওয়ার সময় গুলিস্তান কাউন্টারে তেমন অনিয়ম চোখে না পড়লেও যেদিন মাওয়া থেকে গুলিস্তান আসি সেদিন প্রচুর অনিয়ম হয়। তারা লোকাল বাসের মতো করে যাত্রি উঠাতে থাকে এসি বাসে এবং টিকেট ছাড়া যাত্রি উঠায় ক্যাশ টাকা নেয় বাসের হেল্পার ভাড়া হিসেবে, জানিনা এটা কতৃপক্ষের কাছে পৌছায় কিনা। বাসের হেল্পার ড্রাইভারের পাশে বসিয়ে যাত্রি তো নেয়ই এমনকি দাঁড়িয়ে থেকেও যাত্রি নেয়। এসি ঠিকমতো ছাড়েনা ড্রাইভারকে কয়েকবার বলার পরে এসি ছাড়ে সেটা নাহয় বাদ দিলেন ।


গতকাল ১১/১১/২০১৯ তারিখ সোমবার সকালে আমি ঢাকায় আসার সময় মাওয়া থেকে BRTC এসি বাস সার্ভিসের টিকেট কাটি ৮.১৫ তে তারা বলে ২০ মিনিট পরে বাস ছাড়বে , বাস পুরো ভর্তি হওয়ার পর বাস ছাড়া হয় ৮.৪৮ এর সময়। আমি সবার আগে সিট কাটার জন্য সবার সামনের সিটে ছিলাম। বাস ছাড়ার সময়েই তারা যাত্রি ২ জন বেশি নিয়ে ড্রাইভারের পাশে বসিয়েছিলো তাতে কোন সমস্যা নেই আমার কিন্তু শ্রীনগর যাওার পর তারা বাস থামায় এবং আরো ৩-৪ জন যাত্রী উঠায় তাদের মধ্যে এক বৃদ্ধা মহিলা ছিলেন, আমি সামনের সিটে বসায় সেই বৃদ্ধা মহিলার ছেলে আমাকে উঠে দাঁড়িয়ে তার মা কে বসার সিট দেওইয়ার জন্য বলে। আমি তাকে সিট দিয়ে দেই এবং পুরো রাস্তা দাঁড়িয়ে থেকে আসি। তারপরেও তারা আরো কয়েকটা যায়গায় বাস থামায় এবং দাঁড়িয়ে যাত্রি নিয়ে বাস চালায়।


আমরা সবাই জানি মাওয়া থেকে গুলিস্তানের রাস্তার অবস্থা এই অবস্থা বাস খুবই ভয়াবহ ভাবে চলে এরমধ্যে যদি দাঁড়িয়ে থেকে যাই তাহলে খুব কষ্ট হয়। আমি সবার আগে খালি গাড়িতে সিট কেটে সামনের সিট নিয়েও আপনাদের ড্রাইভার আর হেল্পারের অতিরিক্ত লোভের কারনে প্রায় ১ ঘন্টা ৪০ মিনিট দাঁড়িয়ে থেকে আসছি। এরপর তারা চুনকুটিয়া চৌরাস্তা থেকে গুলিস্তান পর্যন্ত যায়গায় ও যাত্রি উথাচ্ছিলো আর ১০-১৫ টাকার ভাড়া ২০-৩০ টাকা নিচ্ছিলো এই বলে যে "এসি বাসে ভাড়া বেশি দিতে হইবই" আর যারা বেশি দিতে রাজি হচ্ছিলোনা তাদের সাথে দুর্ব্যাবহার করছিলো। 


ওই বাসটি ১১ তারিখ গুলিস্তান থেকে ছেড়ে আসা সকাকের প্রথম বাস ছিলো চালকের নাম আমার মনে আছে তার নাম জাহাঙ্গীর ।


আমি ছবিতুলতেসি দেখে আমার সাথেও দুর্ব্যাবহার করেন এবং ছবি তুলতে যাতে না পারি এজন্য অনেক কিছুই করেন এজন্য আমি বিরক্ত হয়ে পরে আর ছবি তুলিনি।


 


জবাব :

See Reply

আপনার সদয় অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, যাত্রাবাড়ী বাস ডিপোর নিয়ন্ত্রণাধীন গুলিস্থান-মাওয়া রুটটি সুনামের পরিচালিত হয়ে আসছে। গুলিস্থান টু মাওয়া রুটে যাত্রাবাড়ী বাস ডিপো ছাড়াও জোয়ারসাহারা বাস ডিপো এবং গাবতলী বাস ডিপোর আওতাধীন অনেক গুলো বাস পরিচালিত হয়ে থাকে। অনলাইনে অভিযোগকারী নিদিষ্ট করে বাসের নম্বর উল্লেখ করতে পারেনি।অভিযোগকারী অভিযোগ পত্রে জাহাঙ্গীর নামে চালকের নাম উল্লেখ করেন, যা ঐ নামে যাত্রাবাড়ী বাস ডিপোতে কোন চালক নেই। অত্র ডিপোর আওতায় বাসগুলো সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার করার জন্য রুট চালুর শুরু হতে অদ্য গুলিস্থান কাউন্টারে একজন নিজস্ব কাউন্টারম্যান দায়িত্ব পালনের জন্য নিয়োজিত করা হয়েছে। মাওয়া প্রান্তে দেখাশুনা করে থাকে নিঃস্বার্থ কাউন্টার প্রতিনিধি। অভিযোগটি পাওয়া পর যাত্রাবাড়ী বাস ডিপো কর্তৃক আরও একজন কাউন্টারম্যানকে মাওয়া প্রান্তে নিয়োজিত করা হয়েছে। যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের অনাকাঙ্খিত কোন ঘটনা পুনরায় না ঘটে সে বিষয়ে অতীব সতকতা অবলম্বন করা হবে। উল্লেখ্য যে, গুলিস্থান-মাওয়া রুটে পরিচালিত বাসের বিষয়ে জোয়ারসাহারা ও গাবতলী বাস ডিপোর ম্যানেজার (অপারেশন) গণকে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট চালক ও কাউন্টারম্যানদেরকে অধিকতর সতকতার সাথে বাস পরিচালনা ও সম্মানিত যাত্রীগণের সাথে ভালো ব্যবহার করার বিষয়ে সজাগ নজরদারী করার জন্য বলা হয়েছে।


9642. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : University Of Chittagong
তারিখ ও সময় : 12 Nov, 2019 07:14:41
বর্ণনা :

Sir,


I want draw your kind attention that,I am a student Of University Of Chittagong. I are really delighted that BRTC arranges two bus for the students of our University.But it is matter of regret that the new bus that is using the route University - Tigerpass and University-New market is taking fare of 25 taka which is more than the actual rate and before today the fare was 20 taka.To us,it is completely illegal.As a student of a renowned public university and  as a citizen we can not accept this fare.


Therefore, we,the student of University Of Chittagong want your attention and solve this problem as soon as possible.


Regards,


Montasir Abrar,


Dept. Of Management,


University Of Chittagong.


Mobile No:01521484304


জবাব :

See Reply

আপনার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, দীর্ঘদিন ধরে অত্র ডিপোর নিয়ন্ত্রণে নিউমার্কেট-চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রুটে ০১ টি দ্বিতল(পুরাতন) বাস চলাচল করত। রুটের ওয়ান ওয়ের দুরুত্ব ২২ কিঃমিঃ সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ভাড়া আসে ৩১.২৪ টাকা। অভিযোগ পাওয়া গেছে উক্ত রুটে ২০/- ভাড়ার স্থলে ২৫/- টাকা ভাড়া আদায় করা হচ্ছে যা ভিত্তিহীন বলে মনে করি গত ০৪/১১/২০১৯ ইং চট্ট্রগাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু ছাত্র/ছাত্রী অত্র অফিসে এসে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর নিকট বর্ণিত রুটে ০২ টি নতুন দ্বিতল বাস পরিচালনার জন্য অনুরোধ করে। ছাত্র/ছাত্রীদের চাহিদার প্রেক্ষিতে ৩০/-টাকা ভাড়া নির্ধারণ করা হলে, ছাত্র/ছাত্রীরা ২৫/- টাকা ভাড়া প্রদানের প্রস্তাব পেশ করে। সেই প্রেক্ষিতে গত ১১/১১/২০১৯ ইং হতে বর্ণিত রুটে ০২ টি নতুন দ্বিতল বাস পরিচালনা করা হচ্ছে।