.:সড়ক যোগাযোগ সর্ম্পকিত যে কোন সমস্যার তথ্য প্রদান করুন:.    Back to Home | Search by Id 
Back to Home Page
 


Your IP Address: 18.207.106.142
Your Client IP Address: 18.207.106.142
Your Server IP Address: 18.207.106.142
Your Browser: CCBot/2.0 (https://commoncrawl.org/faq/)

সড়ক যোগাযোগ সর্ম্পকিত যে কোন সমস্যার তথ্য প্রদান করুন
প্রদানকারীর নাম : *

ফোন নম্বর: *


ই-মেইল : *


স্হান, জেলা : *

বর্ণনা : *

সমস্যার/ক্ষতিগ্রস্থ স্থানের ছবি (যদি থাকে):
(Max size : 2MB)

আরো ছবি দিন


কোড নম্বরটি লিখুন



তথ্য প্রদানে কোনো কারিগরী ত্রুটির সম্মুখীন হলে যোগাযোগ করুন - ৯৫৭৫৫২৭ এই নম্বরে, E-mail : programmer1@rthd.gov.bd

 
ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রাপ্ত সড়ক যোগাযোগ সর্ম্পকিত তথ্য
Print  
9844. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Bijoynagar, Brahmanbaria
তারিখ ও সময় : 22 Sep, 2020 17:58:23
বর্ণনা :

বিজয়নগর উপজেলার প্রধান সড়ক চান্দুরা টু সিঙ্গারবিল ডিসি রোডের ১৬ কি.মি রাস্তার বেহাল দশা। গত তিন বছর যাবত রাস্তাটির এই বেহাল দশা, তবে গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে স্থানীয় এমপি মহোদয় রাস্তার সংস্কার কাজের উদ্বোধন করেন, কিন্তু এক বছরে রাস্তার ২ কি.মি সংস্কার কাজ সম্পন্ন হয়ে। গত রমজানের ঈদের সময় রাস্তার নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়, যা আজ অবধি বন্ধ রয়ে। রাস্তার অবস্থা কি পরিমান খারাপ তা যাচাই করার জন্য তদন্ত করার অনুরোধ রইলো এবং জনস্বার্থ বিবেচনা করে রাস্তার নির্মাণ কাজ দ্রুত শেষ করার আবেদন জানাচ্ছি।                             



9843. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Brahmanbaria
তারিখ ও সময় : 22 Sep, 2020 16:29:50
বর্ণনা :

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার চান্দুরা- সিঙ্গারবিল পযর্ন্ত প্রায় ১৭ কি.মি ডিসি রোডটি অবস্থা অনেক খারাপ। যা যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।



9841. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : ভাংগা, ফরিদপুর।
তারিখ ও সময় : 15 Sep, 2020 18:14:31
বর্ণনা :

আমি,বি আর টি এর সকল পোড়া মবিল সম্পর্কে কিছু জানতে   চাই।পড়া 


মবিল গুলো আমি কিনতে চাই এজন্য আমি কি করতে পারি        



9838. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : ছাতক, সুনামগঞ্জ
তারিখ ও সময় : 14 Sep, 2020 12:21:36
বর্ণনা :

মাননীয় মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বাংলাদেশ যখন দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে, আমাদের দেশ ইতিমধ্যেই বিশ্ব কে দেখিয়ে দিয়েছে আমরা চাইলে পদ্মা সেতুর মত বিশাল সেতু নিজ অর্থে তৈরি করতে পারি। ঠিক সে সময় আমাদের সুনামগঞ্জ জেলার দক্ষিন ছাতক বাসি একবিন্দু পিছিয়ে থাকতে চাইনা। দীর্ঘ এক যুগের বেশি সময় হতে দক্ষিন ছাতকের জালালপুর থেকে লামা রসুলগঞ্জ এই রাস্তার উল্লেখযোগ্য কোন সংস্কার হয় নাই। এই বিষয়ে আমাদের জনপ্রতিনিধিগণ পুরোপুরি ভাবে অবগত আছেন, তারপর ও কোন অগ্রগতি হচ্ছে না। ফলে মারাত্মক ঝুকি নিয়ে এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন আসা যাওয়া করে লক্ষাধিক জনগণ। প্রতিষ্ঠান এর মধ্যে বারগোপী স্কুল,দোলার বাজার মাদ্রাসা,মঈনপুর জনতা কলেজ মঈনপুর হাই স্কুল ও প্রাইমারী স্কুল,জটি স্কুল,পালপুর মাদ্রাসা পালপুর হাই স্কুল ও প্রাইমারী স্কুল, জাইদপুর হাই স্কুল,জাইদপুর মাদ্রাসা,আনুজানি স্কুল,
রয়েছে আবুল খয়ের হাসপাতাল, পীরপুর হাই স্কুল ও প্রাইমারী স্কুল, ঝিগলী মাদ্রাসা,হায়দরপুর স্কুল,হাট বাজারের মধ্যে দোলার বাজার,মঈনপুর বাজার, আলীগঞ্জ বাজার,পীরপুর বাজার,জাহিদপুর বাজার,কুরসি বাজার,হায়দরপুর বাজার, ঝিগলী বাজার,লাউতলা বাজার,রসুলগঞ্জ বাজার, তাজগঞ্জ বাজার,সিংছাপইর বাজার,খুরমা বাজার,মদিনাগঞ্জ বাজার,সহ দক্ষিন ছাতক ও জগন্নাথপুরের লক্ষ লক্ষ মানুষ এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করে।এই রাস্তা দিয়েই পার্শ্ববর্তী জগন্নাথপুর থানার পাঠালি ইউনিয়ন সহ ছৈলা ইউপি,সৈদের গাও ইউপি, সিংচাপইর ইউপি, ভাতগাও ইউপি,দোলার বাজার ইউপি ইত্যাদি,লক্ষাধিক জনসাধারণ এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করে। রাস্তা এতটাই খারাপ যে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ এর জন্য ধারাবাহিক প্রতিবেদন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয় ফলে সমস্যার সমস্যাই থেকে যায়।বড় ধরনের প্রাণঘাতি কিছু ঘটার আগেই অতিসত্বর রাস্তাটি সংস্কারের জন্য মাননীয় মন্ত্রী আপনার নিকট সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেছেন দক্ষিণ ছাতক বাসী।
আব্দুল কাইয়ুম অপু


জবাব :

See Reply

জনাব, 

অভিযোগের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ,

‘‘ দক্ষিণ ছাতকের জালালপুর থেকে লামা রসুলগঞ্জ পর্যন্ত রাস্তার সংস্কার ’’ বিষয়ে জানতে চাওয়ার প্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে, উক্ত সড়কটি সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন নয়। স্থানীয় ভাবে জানা গিয়েছে যে, উক্ত সড়কটি স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতাধীন।       


9837. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : নারায়ণগঞ্জ
তারিখ ও সময় : 13 Sep, 2020 10:09:37
বর্ণনা :

বিষয়ঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত নারায়ণগঞ্জের ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতু নির্মাণ কাজ দ্রুতগতিতে সমাপ্তকরণ প্রসংগে।


 


মহোদয়,


মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর উপজেলার সৈয়দপুর-মদনগঞ্জ পয়েন্টে নির্মিতব্য ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতু নারায়ণগঞ্জবাসীর বহু দিনের প্রাণের দাবী। জানা যায় যে সৌদি আরবের অর্থায়নে ২০১০ সাল থেকে নির্মাণাধীন সেতুটির মোট ব্যয় প্রায় ৬০০ কোটি টাকা ও জুন ২০২১ সালের মধ্যে সমাপ্তযোগ্য। এই সেতুটি নির্মিত হলে নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থার অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হবে এবং ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার হবে।


বিভিন্ন সময়ে দেখা যায় যে প্রতি বছরই প্রকল্পের কাজ শেষ করতে না পেরে প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয় এবং একইসাথে প্রকল্পের খরচও বেড়ে যায়। জনশ্রুতিতে জানা যায় যে জুন ২০২১ সালের মধ্যে সমাপ্তযোগ্য বর্তমানে সেতুটির মাত্র ৬৫% কাজ সমাপ্ত হয়েছে। বন্দরবাসীদের যাত্রী ও মালামাল পরিবহনের জন্য এখনও একমাত্র নৌকাই ভরসা। এতে সময়ক্ষেপণের পাশাপাশি অর্থেরও অপচয়ও হয়। বিশেষ করে মহিলা, শিশু, প্রবীণ ব্যক্তি ও রোগীদের জন্য নদী পারাপারের মাধ্যমে যাতায়ত করা মারাত্মক দুর্ভোগের কারণ হয়। তাই সঠিক সময়ে উক্ত সেতুটি নির্মাণ হলে নারায়ণগঞ্জবাসী উপকৃত হবে এবং এই করোনা মহামারীর সময় ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার হয়ে জনসাধারণের আয়-রোজগার বাড়বে।


২০১০ সাল থেকে ইতোমধ্যে ১০ বছর পেরিয়ে গেছে, সেতুটির নির্মাণ কাজ এখনও চলমান। এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা হলো, নারায়ণগঞ্জবাসীর এই দীর্ঘ প্রতীক্ষা লাঘবে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত নারায়ণগঞ্জের ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতুটি জুন ২০২১ এর মধ্যে সমাপ্ত করতে পারবে?


জবাব :

See Reply

জনাব, 

আপনার অভিযোগের জন্য ধন্যবাদ,

বাংলাদেশ সরকার ও সৌদি উন্নয়ন তহবিল (এসএফডি) এর যৌথ অর্থায়নে ৫৯৯.২৭ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর উপজেলায় সৈয়দপুর-মদনগঞ্জ পয়েন্টে ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতু নির্মাণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। প্রকল্পটি একনেকে নভেম্বর ২০১০ সালে অনুমোদিত হয়। পরবর্তীতে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ও পূর্ত কাজের ঠিকাদার নিয়োগে নানা কারণে দীর্ঘসূত্রীতার পরে চীনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান Sinohydro Corporation Limited সেতুটি নির্মাণের লক্ষ্যে ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করে।

 

ঠিকাদারের সাথে চুক্তি স্বাক্ষরের পরে যথাসময়ে প্রয়োজনীয় দক্ষ জনবল ও মালামাল প্রকল্প সাইটে মোবিলাইজ করা হয়। ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতু নির্মাণ প্রকল্পটি Design-Build প্রকল্প বিধায় ঠিকাদার নিয়োগের পর যথাযথ জিওটেকনিক্যাল ইনভেস্টিগেশন সমাপান্তে সেতুটির বিষদ নকশা প্রনয়ন ও অনুমোদন শেষে জনাব ওবায়দুল কাদের, এমপি, মাননীয় মন্ত্রী, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় বিগত ২৮ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখ সেতু নির্মানের ভৌত কাজের শুভ উদ্বোধন করেন। এরপর হতে সেতু নির্মাণের ভৌত কাজ অদ্যাবধি পুরোদমে চলমান রয়েছে।

 

সেপ্টেম্বর ২০২০ পর্যন্ত প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি প্রায় ৭০ শতাংশ। প্রকল্পের কর্ম পরিকল্পনা অনুসারে মূল সেতুর কাস্ট-ইন-প্লেস টুইন বক্স-গার্ডার নির্মানের নিমিত্ত ২০ জন দক্ষ চীনা কারিগরী বিশেষজ্ঞ জনবল কাজে যোগদান করার কথা থাকলেও করোনা ভাইরাস জনিত কারণে ভিসা জটিলতায় তারা বাংলাদেশে আসতে পারেন নাই। ফলে বিগত কয়েক মাসে মূল সেতুর বক্স গার্ডার এর কাজ করা সম্ভব হয় নাই। তবে বর্নিত সময়ে প্রকল্পের অন্যান্য অংশের কাজ প্রয়োজনীয় জনবল নিয়ে চলমান রাখা হয়েছে। চলমান সেপ্টেম্বর ২০২০ হতে ভিসা জটিলতা নিরসন হওয়ায় উক্ত বিশেষজ্ঞ দল বাংলাদেশে কাজে যোগদান করছে, ফলে চলমান মাসেই মূল সেতুর ৫টি স্প্যানের কাস্ট-ইন-প্লেস টুইন বক্স-গার্ডার নির্মাণ কাজ চলছে।

 

বর্তমানে প্রয়োজনীয় জনবল ও মালামাল সরবরাহ নিশ্চিত করে জুন ২০২১ এর মধ্যে মূল সেতু নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।


9836. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : মুন্সীগঞ্জ
তারিখ ও সময় : 09 Sep, 2020 04:11:57
বর্ণনা :

জনাব,
আমি মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান থানার একজন বাসিন্দা। আমি মালখানগর ইউনিয়ন থেকে নিয়মিত এস.এস.পরিবহন / ডি.এম. পরিবহনে করে ঢাকাতে যেয়ে এসে অফিস করি। এই রুটের সকল বাসে কোন প্রকার স্ব্যাস্থবিধি না মেনে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে চলাচল করে। আমরা সাধারন যাত্রীরা এই বিষয়ে প্রতিবাদ করলে পরিবহন শ্রমিকরা বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিয়ে আমাদের ভীত করে চুপ করিয়ে দেয়। এমতাবস্থায় আমরা মারাত্বক স্ব্যাস্থ ঝুকিতে আছি এবং নিরাপত্তা হীনতায় আছি। তাই এই বিষয়ে আমরা আপনাদের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অনুগ্রহপূর্বক দ্রুত কোন পদক্ষেপ নিয়ে আমাদের সাধারন যাত্রীদের বাধিত করবেন।


জবাব :

See Reply

আপনার অভিযোগের জন্য ধন্যবাদ।

অভিযোগে পরিবহনের নাম থাকলেও রেজিস্ট্রেশন নাম্বার উল্লেখ না থাকায় ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছেনা। তবে মুন্সিগঞ্জের সহকারী পরিচালক (ইঞ্জিঃ) কে এ অভিযোগের ব্যবপারে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

ধন্যবাদ।


9833. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Satkhira.Shyamnagar
তারিখ ও সময় : 26 Aug, 2020 13:00:14
বর্ণনা :

সার সাতক্ষীরা শ্যামনগর বি আর টি সি কাউন্টার আছে।আমার ২ টা ডিপো পার মশন আছে বাকি ডিপো গুলার পারমিশন পাইতে পারি তার সদয় অবগতির জন্য সার সাতক্ষীরা শ্যামনগর উপজেলার ৩ টা বি আর টি সি কাউন্টার আছে এটাতে বি আর টি সি সন্মান নষ্ট হচ্ছে। য়ে আছে সে কাউন্টার বেচাকেনা করে তার নিজের কোন কাউন্টার নাই সে এই অর্থ দিয়ে বি এন পির কিছু লোককে সে পোশে এ থেকে বি আর টি সি নাম যাহাতে নষ্ট না হয় তার প্রতিকার পাইতে পারি তার ব্যবস্থা গ্রহন প্রসঙ্গে।                      


জবাব :

See Reply

বিষয়ঃ  শ্যামনগর সাতক্ষীরা কাউন্টার প্রতিনিধি সংক্রান্ত।

 গত ২৬/০৮/২০২০ তারিখে জনাব এস কে আবু আজিম নামে একজন ব্যাক্তি শ্যামনগর সাতক্ষীরা টিকিট কাউন্টারের বিষয়ে অভিযোগ দাখিল করে। অত্র ডিপোর কাউন্টার প্রতিনিধি নথি পরীক্ষান্তে দেখা যায় শ্যামনগর সাতক্ষীরায় বিআরটিসি’র দুই জন কাউন্টার প্রতিনিধি রয়েছে। মোঃ কামরুজ্জামান টুকু টিসি বাসের কাউন্টার প্রতিনিধি ও জনাব মোঃ মাসুদ রানা এসি বাসের কাউন্টার প্রতিনিধি। অভিযোগকারী ব্যক্তির নামে খুলনা বাস ডিপোর কোন কাউন্টার বরাদ্ধ নেই। অভিযোগকারী সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান এসি বাসের কাউন্টার প্রতিনিধির সাথে তিনি যৌথভাবে কাউন্টারে বসেন। এছাড়া প্রধান কার্যালয় হতে ডিপো কর্তৃক কাউন্টার প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়ার ব্যাপারে নিশেদাঙ্গা রয়েছে। বিআরটিসির যাতে সুনাম ক্ষুন্ন না হয় সে বিষয়ে কাউন্টার প্রতিনিধিদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।


9832. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : শশীধরপুর, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া।
তারিখ ও সময় : 25 Aug, 2020 07:26:42
বর্ণনা :

আসসালামু আলাইকুম,


আমার একটি আবেদন ছিল মাননীয় সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রী মহোদয়ের নিকট।


আমার ঠিকানা


গ্রাম - শশীধরপুর,


পোস্ট - অফিস তারাগুনিয়া,


থানা - দৌলতপুর,


জেলা - কুষ্টিয়া,


বিভাগ - খুলনা, এবং আমি একজন বাংলাদেশী।


আমি যে বিষয়ে আপনার কাছে আবেদন জানাচ্ছি সেটি হচ্ছে, আমাদের গ্রামের রাস্তা এতটাই খারাপ যেটা চলার অনুপোযোগী। তারাগুনিয়া থেকে গোডাউন বাজার পর্যন্ত যে রাস্তাটি একটি সেটি আমাদের দৌলতখালি গ্রাম এবং আমাদের উপজেলা দৌলতপুর এর সাথে সংযুক্ত এবং এই রাস্তাটি আমাদের গ্রামের মেন   রাস্তা,  এটির এমন বেহাল দশা রাস্তাটিকে ভেঙে নতুন করে না বানালে রাস্তাটি কোনমতে ঠিক করা যাবে না। আর এই রাস্তাটি প্রায়ই আড়াই থেকে তিন বছর যাবত এই ভাবেই পড়ে আছে তাই মহোদয়ের নিকট আমার আবেদন এই রাস্তাটি ভেঙ্গে নতুন করে তৈরি করে দেওয়ার জন্য। 


জবাব :

See Reply

জনাব, 

অভিযোগের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

অভিযোগে বর্ণিত সড়কটি সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন সড়ক নয়।


9831. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : Patiya to shah amanat Bridge,Chattogram
তারিখ ও সময় : 23 Aug, 2020 13:32:36
বর্ণনা :

চট্টগ্রাম  নতুন ব্রীজ( শাহ আমানত সেতু) হতে পটিয়ার নায্য ভাড়া ২০ টাকা,পটিয়া মনসা বাদামতল পযন্ত নায্য ভাড়া ১৫ টাকা দীর্ঘদিন যাবত পরিবহন মালিক সমিতি বা ড্রাইভারাা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করেছে,কোভিড ১৯ কারনে স্যোশাল ডিসট্যান্স মানার কারনে ভাড়া নেয়া হচ্ছে ৫০ টাকা, বাদামতল যেখানে ১৫ টাকা ভাড়া  যাওয়ার সময় ৩০ নেয়া হলে ও আসার সময় ৫০টাকা দিয়ে আসতে হচ্ছে।ড্রাইভাররা ইচ্ছে করে গাড়ি বন্ধ করে রাখে বাড়তি ভাড়ার জন্য,মানুষকে জিম্মি করে অতিরিক্ত ভাড়া  আদায় করেছে,আপনাদের কাছে বিশেষভাবে অনুরোধ ড্রাইভার দের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নেন, প্রয়োজনেে আপনারা যাত্রীদের থেকে জিজ্ঞেস করে নিন কি পরিমাণ হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে                    



9830. প্রদানকারীর বিবরণ (নাম,ফোন ইত্যাদি) : মতামত প্রদানকারীর পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না।
ক্ষতিগ্রস্থ স্হান, জেলা : dhaka
তারিখ ও সময় : 19 Aug, 2020 09:31:07
বর্ণনা :

There are no way to maintain health safety during travleing on public transport system speacially in local buses which is very risky at this time because of covid 19,moreover people are not maintaning social distance.this will spread this virus hugely if the goverment do not take necessary steps.Cosing of transports system is not a proper solution so we have to do alternatives.We are a team working on  this type of problems. We have designed a spray system,which will sanitize people before entering to the bus.This system will not take extra space,entrance will not damp.We want to fix this system in every local bus so that inefection of this virus will decreased.We need goverment aprroval,investment and support to establish this project.This project budget is very affordable.


জবাব :

See Reply

Thanks for your proposal,

Please write an application to BRTA chairman for making a prsention on your proposal with the presence of Bus owner somity.

Thanks again.